সর্বশেষ

10/recent/ticker-posts

ফ্রান্সকে ইসলাম অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশ করতে নিষেধ করেছে রাশিয়া

 



আজারবাইজানিরা ইতিহাস ও সাংস্কৃতিক-ভাবে তুরস্কের ঘনিষ্ঠ। এছাড়াও তেলসমৃদ্ধ এই দেশটিকে তেল রপ্তানির জন্য নির্ভর করতে হয় তুরস্কের ওপর। তাদের তেলের পাইপলাইন গেছে তুরস্কের ভেতর দিয়ে। কিন্তু রাশিয়া কয়েক শতাব্দী ধরে এই ককেশাস অঞ্চলে তাদের প্রভাব বিস্তার করে আসছে।


লিবিয়া ও সিরিয়া এবং সর্বশেষ ককেশাসে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের প্রভাব বিস্তারের আকাঙ্ক্ষা ও সেই লক্ষ্যে সামরিক তৎপরতার কারণে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও তার বিরোধ সৃষ্টি হয়েছে।পূর্ব ভূমধ্যসাগরে সম্প্রতি গ্যাসের যে বিশাল ভাণ্ডারের খোঁজ পাওয়া গেছে সেটিও উঠে এসেছে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের ভূ-রাজনৈতিক এজেন্ডায়।

সম্প্রতি ফান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলাম ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর অবমাননার ঘটনায় উত্তাল মুসলিম দেশেগুলোর নানা প্রাঙ্গন। দেশটির এমন আচরণ নিয়ে সমালোচনা চলছে সবজায়গায়। এবার ফ্রান্সসহ ইউরোপীয় দেশগুলোতে ইসলাম অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া।

বার্তা সংস্থা রিয়ানোভোস্তি সম্প্রতি, কোনও ধর্মীয় বিশ্বাসের প্রতি অবমাননা ও ধর্মপ্রাণ জনগোষ্ঠীর অনুভুতিতে আঘাত হানা রাশিয়ার দৃষ্টিতে গ্রহণযোগ্য নয়।

বৃহস্পতিবার রাশিয়ার প্রসিডেন্টের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ মস্কোয় সাংবাদিকদের বলেন, ইসলামের নবীর (সাঃ) অবমাননা করার কারণে ফ্রান্সে সহিংসতা বেড়ে গেছে। কাজেই সবার আগে এ ধরনের অবমাননাকর কার্যকলাপ বন্ধ করতে হবে।

সম্প্রতি স্যামুয়েল প্যাটি নামে ফ্রান্সের একজন শিক্ষক তার ক্লাসের শিক্ষার্থীদের সামনে মুহাম্মদ (সাঃ) এর কার্টুন প্রদর্শন করার পর হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ ওই হত্যাকাণ্ডের জন্য তার দেশের মুসলমানদের দায়ী করেন।

এদিকে, সাইপ্রাসের সমুদ্র উপকূলে গ্যাসের সন্ধানে তুরস্কের তৎপরতায় সাইপ্রাস ও গ্রিসের সরকার ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। এই দুটো দেশই ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদস্য। এবিষয়ে ই.ইউও প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে সতর্ক করে দিয়েছে।

পশ্চিমা দেশগুলোর চাপ অবজ্ঞা করে মি. এরদোয়ান উত্তর সাইপ্রাসে তুর্কী জাতীয়তাবাদী নেতাদের স্বঘোষিত সরকারকে স্বীকৃতি দিয়েছে। তুরস্কই একমাত্র দেশ যারা এই স্বীকৃতি দিল।ম্যাক্রোঁ আরও বলেন, ফ্রান্সে রাসুল (সাঃ) ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ অব্যাহত থাকবে। তার এ বক্তব্যের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ, ভারত ও ইরানসহ পুরো বিশ্বে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।


মুসলিম বিশ্বে প্রতিবাদ জোরদার হওয়ার পরও ফরাসি প্রেসিডেন্ট প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়েছেন যে, ফ্রান্সে এই ধরনের কার্টুন ছাপানো কখনই বন্ধ হবে না। পাশাপাশি তিনি একথাও বলেন, সারা বিশ্বে ইসলাম ধর্ম সংকটের মধ্যে রয়েছে।

সমালোচকরা বলছেন, বহু আগে থেকেই প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের বেশ কিছু ইসলামপন্থী এজেন্ডা রয়েছে। মিশরে নিষিদ্ধ-ঘোষিত রাজনৈতিক দল মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে রয়েছে তার আদর্শগত মিল।

প্রসঙ্গত, শুধু রাশিয়া নয় ফ্রান্সের এমন অন্যায়, অবমাননাকর কাজ মুসলিম বিশ্বেও জড় তুলে দিয়েছে।  মুসলিম বিশ্বের অনেক দেশ ফ্রান্সের পণ্য বয়কটের ডাক দেয়। সুপার মার্কেট থেকে ফরাসি পণ্য সরিয়ে ফেলা হয়, নতুন করে আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়।

তুরস্ক, কাতার, সৌদিআরব, ইরান, পাকিস্তান, মালেশিয়া সহ বহু দেশ এবং দেশের নেতারা ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এর তীব্র নিন্দা জানান।  তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান ফরাসি প্রেসিডেন্টকে মানসিক রোগী বলে আখ্যা দেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ