সর্বশেষ

10/recent/ticker-posts

অবশেষে আজ শাস্তি শেষ হল সাকিবের

 




সাকিব আল হাসান নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের অন্যতম এবং ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়। 


তিনি শুধু বাংলাদেশেরই নয়, রাজত্ব করেছেন বিশ্ব ক্রিকেট।  ওয়ানডে, টি টুয়েন্টি, টেষ্ট, ৩ ফরমেটে ছিলেন বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার।  তার ব্যাট হাতে যেমন দেখেছেন চার ছক্কা তেমনি বল হাতেও দেখেছেন যাদু। 


কিন্তু গত ১ বছর আগে তাকে আইসিসি শাস্তি দেয় এবং তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল যে, আন্তর্জাতিক ২ টি ম্যাচ ও আইপিএলের ১ টি ম্যাচে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও তা জানাননি আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে। আন্তর্জাতিক ম্যাচ ২ টি ছিল জিম্বাবুয়ে ও শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজে। সে বছর আইপিএলের সানরাইজার্স হায়দরাবাদ-কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ম্যাচেও একই অপরাধ করেন সাকিব, ভাঙেন আইসিসির দুর্নীতি দমন আইনের ২.৪. ৪ ধারা। 


তবে এই বিষয় সাথে সাথে আইসিসি পর্যবেক্ষণ না করলেও পরে ঠিকই ধরে ফেলে এবং তার ফলস্বরূপ শাস্তি পেতে হয়, ১ বছরের জন্য চলে যেতে হয় মাঠের বাইরে। 


তবে আগামীকালের সূর্যটা আক্ষরিক অর্থেই নতুন সূর্য হবে সাকিব আল হাসানের জন্য। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (ICC) দেওয়া নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবে  কাল। আজ বুধবার আইসিসির বহিষ্কারাদেশের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর কাল থেকেই সাকিবের মাঠে নামতে আর কোনো বাধা থাকবে না। ব্যাট-বল হাতে আবারও তাঁকে পাবে বাংলাদেশ।  আবারো দেখাবে বাংলাদেশ সহ বিশ্বকে তার চমক।


বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমীরা অধির আগ্রহ নিয়ে পহর গুনছে কবে তাদের প্রিয় খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান মাঠে নামবে, কখন তার খেলা উপভোগ করবে। ক্রিকেট পাড়ায় সাকিব আল হাসান মানেই নতুন কিছু। 


গত ১ বছরে তিন ফরম্যাট এর ক্রিকেট মিলিয়ে বাংলাদেশ দলের হয়ে ৩৬টি ম্যাচের বাইরে থাকার কথা ছিল সাকিবের। তবে মার্চের মাঝামাঝি করোনাভাইরাসের কারণে খেলাধুলা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এর বেশির ভাগ ম্যাচই হয়নি। বাংলাদেশ দলকেও তাই খুব বেশি ম্যাচে সাকিবের অভাব অনুভব করতে হয়নি।


এ বছর অক্টোবর-নভেম্বরের শ্রীলঙ্কা সিরিজটি করোনার কারণে স্থগিত না হলে এই সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট দিয়েই সাকিবের ক্রিকেটে ফেরার কথা ছিল। করোনার কারনে ভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচার জন্য শ্রীলঙ্কা সরকার অনেক বড় শর্ত জুড়ে দেয়।  শ্রীলঙ্কার শর্ত মানা সম্ভব না এবং এতে আমাদের ক্রিকেটাররা পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা পাবেনা বলে এই সিরিজটি বাতিল করা হয়।


তবে সাকিব মাঠে নেমে যেতে পারেন আগামী মাসের মাঝামাঝি শুরু হতে যাওয়া বিসিবির পাঁচ দলের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট দিয়েই।  টুর্নামেন্টে খেলতে এ মাসের শেষে না হলেও আগামী মাসের শুরুতে সাকিব দেশে ফিরবেন বলে জানা গেছে। নির্বাচকেরাও তাঁকে রেখেই গড়ছেন দল। 


প্রিয় সাকিব আল হাসান কে তার ভক্তরা কোন রূপে দেখতে চান সেটা তো আর নতুন করে বলার কিছু নেই,  সবাই মনে করে সাকিব তার সেরাটা নিয়েই মাঠে ফিরবে, যেই খেলা ২০১৯ বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসান সারা বিশ্বকে দেখিয়েছেন তার চেয়েও ভালো কিছু পাবেন সাকিব ভক্তরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ