সর্বশেষ

10/recent/ticker-posts

সাধারণ ব্যক্তি থেকে যেভাবে হয়ে গেলেন মুসলিম বিশ্বের নেতা এরদোয়ান (তুর্কি প্রেসিডেন্ট)



শুধু তুরস্কেরই নয়, বিশ্বের সকল মুসলিম বিশ্বে এরদোয়ান একটি পরিচিত নাম। তাকে চিনেন না এমন মুসলিম খুঁজে পাওয়া কষ্ট। মুসলমানদের প্রতি তার ভালোবাসা এবং অন্যায় অত্যাচার এর বিরুদ্ধে  সবসময় প্রতিবাদে সবার আগে এখন এগিয়ে আসেন তুরস্কের প্রসিডেন্ট এরদোয়ান। 


কিন্তু সবাই হয়তো তার অতীত সম্পর্কে জানেন না, আজকের এরদোয়ান আর অতীত এর এরদোয়ান এক ছিল না। তবে এটা তুরস্কবাসী মেনে নিয়েছেন যে এরদোয়ান হলেন তুরস্কের ইতিহাসের প্রেসিডেন্ট-এর মধ্যে অন্যতম একজন।  

অত্যন্ত সাধারণ জীবন-যাপন দিয়ে শুরু হলেও রেচেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বর্তমানে এমন এক প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বে পরিণত হয়েছেন যিনি আধুনিক তুরস্কের জনক মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের শাসনামলের পর অন্য যে কোন নেতার চেয়ে দেশটিকে সবচেয়ে বেশি বদলে দিয়েছেন।

তবে কিছু বছর ধরে দেশের অর্থনীতির অবস্থা এতোটা বেশি ভালো যাচ্ছে না বলে জানা যায়। 

মুদ্রাস্ফীতির হার প্রায় ১২% এবং মার্কিন ডলারের বিপরীতে তুর্কী মুদ্রা লিরার মূল্য রেকর্ড পরিমাণে হ্রাস পেয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে তুরস্কের এই অর্থনৈতিক দুর্দশা আরো বেশি খারাপ হয়েছে।
ইসলাম নিয়ে ফ্রান্সের সঙ্গে বাকযুদ্ধে জড়িয়ে বর্তমানে তিনি আলোচিত এক রাজনীতিকে পরিণত হয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট  এরদোয়ান ২০০৩ সালের মার্চ মাসে যখন তুরস্কের নেতা নির্বাচিত হন, তখন  এক ডলারে পাওয়া যেত ১ দশমিক ৬ লিরা। কিন্তু এখন এক ডলারের মূল্য আট লিরারও বেশি।

তার শাসনামলের শুরুর দিকে দেশে বড় ধরনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটেছিল, হয়েছিল ব্যাপক উন্নয়নও।
সাম্প্রতিক সময়ে এরদোয়ান বহির্বিশ্বে তার শক্তি প্রদর্শনের জন্য খুব বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন যা অনেক দেশকে অবাক করেছে।


লিবিয়া আর সিরিয়ার সংঘাতে সরাসরি জড়িয়ে পড়েছে তুরস্কের সামরিক বাহিনী এবং তার জন্য একমাত্র দাবি এরদোয়ান এর।  
দুটো দেশের মধ্যে তীব্র লড়াই শুরু হওয়ার আগে তুরস্ক ও আজারবাইজান মিলে চালিয়েছে যৌথ মহড়া। যুদ্ধে আজারবাইজানকে সরাসরি সমর্থন দিয়ে অনেক দেশের সমালোচনার শিকার হয়েছে তুরস্ক।

সম্প্রতি ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রঁ ফ্রান্সে ইসলামপন্থীদের দমনে তৎপর হলে এবং ইসলাম ধর্মের সমালোচনা করলে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান ফরাসি প্রেসিডেন্টেকে তার মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার কথা বলেছেন। ফরাসী পণ্য বয়কটেরও ডাক দিয়েছেন তিনি। এতো ফ্রান্স ক্ষুব্ধ হয়েছে।

এই ঘঠনার জের ধরে ফ্রান্সের কার্টুন কোম্পানি এরদোয়ান এর ব্যঙ্গচিত্র ছাপায়, এবং এতে তিনি ক্রুদ্ধ হয়ে সেই কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা করেন এবং আরও আলোচিত হয়ে ওঠেন। 

অনেক বিশেষজ্ঞরা, সাধারণ মানুষ বা অন্যান্য দেশের নেতারা মনে করেন আসছে আগামী বিশ্বের শক্তিশালী নেতা হবেন এরদোয়ান এটা নিঃসন্দেহে বলা যায়। তার নীতি, সাহস, অন্যয়ের প্রতিবাদ সবকিছু তাকে নিয়ে যাবে শীর্ষ স্থানে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ