সর্বশেষ

10/recent/ticker-posts

‘সততা স্টোরের’ প্রতিষ্টাতা শিক্ষক শহিদুল পেলেন দেশসেরা শিক্ষকের স্বীকৃতি

 



রাজবাড়ির শহিদুল ইসলামকে দেশের সেরা প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত করা হয়েছে। তিনি রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার স্বনির্ভর ইসলামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। 'জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ -২০১৮' উপলক্ষে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় তাকে দেশের সেরা প্রধান শিক্ষক হিসাবে বেছে নিয়েছে।


বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আম্বিয়া সুলতানা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ইউএনও আম্বিয়া সুলতানা জানান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের (স্কুল -২) একটি চিঠি সোমবার সন্ধ্যার কিছু  সময় আগে এসেছিল। তালিকার প্রথম নাম রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি শহীদুল ইসলাম।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, শহীদুল প্রধান শিক্ষক হিসাবে ১৯৯৮  সালের ২ ডিসেম্বর স্কুলে যোগদান করেন। তিনি স্কুলে প্রথম সততা স্টোর চালু করেছিলেন। বিক্রেতা ছাড়া এই দোকানটি দেশের প্রথম ছিল। বিষয়টি বিভিন্ন মহলে ব্যাপক প্রশংসা অর্জন করেছে। পরে এটি জাতীয় পর্যায়ে রোল মডেল হয়ে ওঠে। জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ -২০১৮  সালে তার স্বনির্ভর ইসলামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি জেলার সেরা প্রাথমিক বিদ্যালয় হিসাবে নির্বাচিত হয়েছিল। 

গত বছর তিনি উপজেলা পর্যায়ে সর্বপ্রথম সেরা প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছিলেন। এর পরে জেলা ও বিভাগীয় স্তরেও সেরা শিক্ষকদের বাছাই করা হয়েছিল। রবিবার তিনি দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে সেরা প্রধান শিক্ষক হিসাবে নির্বাচিত হন। সোমবার বিকেলে মন্ত্রণালয় থেকে ইউএনওর কাছে একটি মেইল ​​পাঠিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ২০১৪ সাল থেকে তিনি ছয় বছর ধরে কোনও নৈমিত্তিক ছুটি নেন নি। বিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ কর্নার, গ্রন্থাগার, প্রার্থনা হল, শহীদ মিনার, উপকরণের কর্নার, মিনা-রাজু পার্ক, পতাকা মঞ্চ, রিডিং কর্নার, হাসান আলী স্কয়ার, আমাদের ওয়ার্ল্ড, অ্যানিম্যাল মুরালসহ, ভূগোলক সহ বিভিন্ন স্থাপনা রয়েছে।। প্রাথমিক সমাপনীতে ভাল ফলাফল পেতে তিনি স্কুলের সময়সূচির বাইরে বিকেলে বা রাতের স্কুল শুরু করেছেন।

শহিদুল ইসলাম বলেছিলেন, ‘আমি অভিভূত। অসাধারণ অনুভূতি. এই কৃতিত্বের জন্য স্কুলটি শিক্ষক, শিক্ষার্থী, পরিচালনা কমিটি এবং স্থানীয়দের কাছে কৃতজ্ঞ। এই কৃতিত্বের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমি সারা জীবন কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারি। '

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, প্রতি বছর মার্চের শেষ সপ্তাহে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ পালন করা হয়। এ সময় জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক ঘোষণা করা হয়। তবে এই বছর করোনভাইরাস সংক্রমণের কারণে, নির্দিষ্ট সময়ে ২০১৯ পদকটি ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ